1. editor@madaripursomoy.com : Madaripur Somoy : Madaripur Somoy
  2. admin@madaripursomoy.com : মাদারীপুরসময় ডটকম : মাদারীপুরসময় ডটকম
  3. news@madaripursomoy.com : Madaripur Somoy : Madaripur Somoy
শিশু শিক্ষার্থীকে আছাড় দিয়ে মেরুদণ্ডের হাড় ভেঙে দিলেন শিক্ষক - মাদারীপুরসময় ডটকম
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৫:১১ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
কালকিনিতে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত কালকিনিতে উপজেলা পাবলিক লাইব্রেরীর উদ্বোধন কালকিনিতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সংঘর্ষে যুবক নিহত,আহত ৫ ডাসারে ব্রীজের সাথে সাঁকো দিয়ে ভোগান্তি লাঘবের চেষ্টা যোগ্যদের বাদ দিয়ে কালকিনি প্রেসক্লাবের ঘরোয়া কমিটি ঘোষণার অভিযোগ কালকিনিতে উপজেলা পরিষদের মাসিক সাধারন সভা অনুষ্ঠিত কালকিনি পৌরসভাকে পরিচ্ছন্ন রাখতে বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আধুনিকায়ন কালকিনিতে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে এক মাদক ব্যবসায়ীকে সাজা প্রদান মাদারীপুরের বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাস খালে,নিহত ১০ মাদারীপুরে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ডিকেবিডিসি’র পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত

শিশু শিক্ষার্থীকে আছাড় দিয়ে মেরুদণ্ডের হাড় ভেঙে দিলেন শিক্ষক

  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৯ নভেম্বর, ২০২৩
  • ২২৮ বার পঠিত
madaripursomoy260
print news

মাদারীপুর জেলা প্রতিনিধি :

মাদারীপুরে ফায়েজ হাওলাদার নামে আট বছর বয়সী ছাত্রকে বেদম মারধরের অভিযোগ উঠেছে তার মাদরাসার এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। মারধরের একপর্যায়ে শিশুটিকে তুলে আছাড় দেওয়া হলে তার মেরুদণ্ডের হাড় ভেঙে যায়। বর্তমানে শিশুটি রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

গত সোমবার (৬ নভেম্বর) ঘটনাটি ঘটলেও বৃহস্পতিবার (৯ নভেম্বর) সকালে তা জানাজানি হয়।

ফায়েজ হাওলাদার মাদারীপুর সদর উপজেলার নয়াচর গ্রামের সবুজ হাওলাদারের ছেলে। অভিযুক্ত শিক্ষক মাহাদী হাসান চরমুগরিয়া এলাকার জামিয়া কাসেমিয়া রওতুল উলুম ক্যাডেট কেয়ার মাদরাসার নুরানী শিক্ষক।

জানা গেছে, গত সোমবার ভোরে মাদারীপুর সদর উপজেলার চরমুগরিয়া এলাকার জামিয়া কাসেমিয়া রওতুল উলুম ক্যারেট কেয়ার মাদরাসার নাযেরা বিভাগের শিক্ষার্থী ফায়েজকে ঘুম থেকে শ্রেণিকক্ষে ডেকে নেন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক মাহাদী হাসান। এ সময় ফায়েজকে শ্রেণিকক্ষে উঠে দাঁড়াতে বলেন তিনি। শিক্ষকের কথা মতো না দাঁড়িয়ে ঘুমিয়ে পড়ে শিশুটি। এতে রাগান্বিত হয়ে ফায়েজকে বেত্রাঘাত করেন মাহাদী হাসান। একপর্যায়ে ফায়েজকে তুলে আছাড় দেন। বিষয়টি কাউকে বললে মেরে ফেলার হুমকিও দেন অভিযুক্ত শিক্ষক।

পরদিন মঙ্গলবার ফায়েজ অসুস্থ হয়ে পড়লে ভর্তি করা হয় জেলা সদর হাসপাতালে। পরে বিষয়টি জানানো হয় স্বজনদের। বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ধরা পড়ে শিশুটির মেরুদণ্ডের হাড় ভেঙে গেছে। বুধবার রাতে তাকে রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন চিকিৎসক। শিশুটি সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারছে না।

ফায়েজের মামা সাহাবুদ্দিন বেপারী বলেন, মাদরাসায় ছেলে বা মেয়েকে কিছু শেখানোর জন্য পাঠানো হয়। কিন্তু মাহাদী হাসান যে কাজটি করেছেন এর বিচার হওয়া দরকার। আট বছরের শিশুর সঙ্গে এমন অত্যাচার কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।

শান্ত ইসলাম নামে এক স্থানীয় বাসিন্দা বলেন, শিক্ষক মাহাদী নরপশুর মতো কাজ করেছে। আমরা এই মাদরাসা বন্ধের পাশাপাশি তার বিচার চাই।

মাদরাসার শিক্ষার্থী তাজিম, ইমরান খান, রফিকুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন জানায়, হঠাৎ রেগে গিয়ে ফায়েজের ওপর এমন অত্যাচার করেছেন শিক্ষক মাহাদী। ফায়েজকে তুলে আছাড় দেওয়ার পাশাপাশি লাথিও দেন তিনি। আমাদের বন্ধুকে ভয়ও দেখানো হয়েছে।

শিশুটির মা শ্যামলী আক্তার বলেন, আমার ছেলেকে অত্যাচার করেও থামেনি। কাউকে বিষয়টি জানালে মেরে ফেলার হুমকিও দেন ওই শিক্ষক। এ ঘটনার বিচার চাই আমরা।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মাসুদ আলম খান জানান, বিষয়টি এরই মধ্যে জেলা পুলিশের নজরে এসেছে। ঘটনা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্তসহ মাদরাসা সংশ্লিষ্টদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Please Share This Post in Your Social Media

এ জাতীয় আরও খবর
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব madaripursomoy.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Theme Customized By Shakil IT Park

এই ওয়েবসাইটের সকল স্বত্ব madaripursomoy.com কর্তৃক সংরক্ষিত