1. editor@madaripursomoy.com : Madaripur Somoy : Madaripur Somoy
  2. admin@madaripursomoy.com : মাদারীপুরসময় ডটকম : মাদারীপুরসময় ডটকম
  3. news@madaripursomoy.com : Madaripur Somoy : Madaripur Somoy
মাদারীপুর জেলার প্রতিটি ফসলের মাঠ এখন কৃষকের পদচারণায় মুখরিত - মাদারীপুরসময় ডটকম
শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০৮:২৩ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
কালকিনিতে স্কুল ছাত্রীকে মারধরের ঘটনায় শতাধিক বোমা বিস্ফোরণ; দোকানসহ বেশকয়টি বসতঘর ভাংচুর ১৮ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের নাটক,পুলিশের অভিযানে আটক ৩ কালকিনিতে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত কালকিনিতে উপজেলা পাবলিক লাইব্রেরীর উদ্বোধন কালকিনিতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সংঘর্ষে যুবক নিহত,আহত ৫ ডাসারে ব্রীজের সাথে সাঁকো দিয়ে ভোগান্তি লাঘবের চেষ্টা যোগ্যদের বাদ দিয়ে কালকিনি প্রেসক্লাবের ঘরোয়া কমিটি ঘোষণার অভিযোগ কালকিনিতে উপজেলা পরিষদের মাসিক সাধারন সভা অনুষ্ঠিত কালকিনি পৌরসভাকে পরিচ্ছন্ন রাখতে বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আধুনিকায়ন কালকিনিতে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে এক মাদক ব্যবসায়ীকে সাজা প্রদান

মাদারীপুর জেলার প্রতিটি ফসলের মাঠ এখন কৃষকের পদচারণায় মুখরিত

  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২৩
  • ১৪৪ বার পঠিত
madaripursomoy141
print news

মাদারীপুর জেলা প্রতিনিধি :

দিগন্তজোড়া মাঠে সবুজের সমারোহ বিস্তীর্ণ ফসলের মাঠ। চারদিক তাকালেই চোখ জুড়িয়ে যায়। মাদারীপুর জেলার প্রতিটি ফসলের মাঠ এখন কৃষকের পদচারণায় মুখরিত। ভালো ফলনের আশায় আমন ধান পরিচর্যায় কৃষকরা এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন। কাকডাকা ভোর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলছে ধান খেত পরিচর্যার কাজ। কৃষকরা ফসলের মাঠে আগাছা পরিষ্কার, সার প্রয়োগ ও পোকার আক্রমণ থেকে ধান রক্ষা করতে কীটনাশক প্রয়োগ করছেন।

সরেজমিনে মাদারীপুরের বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে দেখা যায়, বিস্তীর্ণ মাঠজুড়ে সোনালি ধানের সমাহার। যেদিকে চোখ যায় শুধু ধান আর ধান। বৃষ্টি বেশি হয় ধানে পোকামাকড় কম হয়েছে। সকাল পেরিয়ে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নারা প্রখর রোদ গায়ে মেখে ধানের গোছাগুলো যেন আরও হৃষ্টপুষ্ট হয়ে উঠেছে। এদিকে এ বছর আমন চাষে সার ও কীটনাশকের দাম বৃদ্ধিতে কৃষকের বাড়তি খরচ গুণতে হয়েছে। তবে এসব সমস্যা কাটিয়ে আমান ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষকরা। তারা বলেছেন, গত বছর প্রতিমণ ধান বিক্রি হয়েছে ৮০০ থেকে ৯০০ টাকা। এ বছর যদি ধানের দাম বাড়ে তাহলে কৃষকের কিছুটা লাভ হবে। সরকারের কাছে ধানের ন্যায্য মূল্যের দাবি জানান তারা।

কালকিনি উপজেলার আলিপুর এলাকার কৃষক মাজেদ আলী জানান, এ বছর আমন আবাদ করে আশা করা যায় আল্লাহর রহমতে বাম্পার ফলন পাব। তবে গেল বছরের চেয়ে আবাদে খরচ হয়েছে দ্বিগুণ। সার ও বিদ্যুতের দাম বেশি হওয়ায় খরচ বেশি পড়েছে। প্রতি বিঘায় খরচ হয়েছে ১৫ হাজার টাকা। তারপরেও আশা করছি এ বছর আমন ধান ভালো হওয়ায় লাভ হবে।

সদর উপজেলার খোয়াজপুর ইউনিয়নের মধ্যেরচর এলাকার ধান চাষি মো. আবদুল রসিদ বলেন, বাজারে দাম ভালো রয়েছে। এ বছর ধানে কৃষকের লাভ হবে। খরচ বাদে প্রতি বিঘা জমিতে ১০-১৫ হাজার টাকা লাভ হবে।

মাদারীপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক ড. সন্তোষ চন্দ্র চন্দ জানান, এবার জেলায় আমন ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা হয়েছে ২২ হাজার ৩০ মেট্রিক টন। এ জেলায় পর্যাপ্ত বৃষ্টি হওয়ায় ধানের খেতে পোকা-মাকড়ের আক্রমণ হয়নি। এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে আমন ধান চাষ হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

এ জাতীয় আরও খবর
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব madaripursomoy.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Theme Customized By Shakil IT Park

এই ওয়েবসাইটের সকল স্বত্ব madaripursomoy.com কর্তৃক সংরক্ষিত