1. editor@madaripursomoy.com : Madaripur Somoy : Madaripur Somoy
  2. admin@madaripursomoy.com : মাদারীপুরসময় ডটকম : মাদারীপুরসময় ডটকম
  3. news@madaripursomoy.com : Madaripur Somoy : Madaripur Somoy
ফরিদপুরে বাবার লাশ বাড়িতে রেখে পরীক্ষায় বসলেন মেয়ে - মাদারীপুরসময় ডটকম
সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ০৬:৫০ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
কালকিনিতে উপজেলা পাবলিক লাইব্রেরীর উদ্বোধন কালকিনিতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সংঘর্ষে যুবক নিহত,আহত ৫ ডাসারে ব্রীজের সাথে সাঁকো দিয়ে ভোগান্তি লাঘবের চেষ্টা যোগ্যদের বাদ দিয়ে কালকিনি প্রেসক্লাবের ঘরোয়া কমিটি ঘোষণার অভিযোগ কালকিনিতে উপজেলা পরিষদের মাসিক সাধারন সভা অনুষ্ঠিত কালকিনি পৌরসভাকে পরিচ্ছন্ন রাখতে বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আধুনিকায়ন কালকিনিতে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে এক মাদক ব্যবসায়ীকে সাজা প্রদান মাদারীপুরের বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাস খালে,নিহত ১০ মাদারীপুরে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ডিকেবিডিসি’র পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত কালকিনিতে পূর্ব শত্রুতার জেরে ইউপি সদস্যের বাড়িতে হামলা;পুলিশ সহ আহত ১০

ফরিদপুরে বাবার লাশ বাড়িতে রেখে পরীক্ষায় বসলেন মেয়ে

  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০২৩
  • ৬৭ বার পঠিত
22 8 23.madaripur 13
print news

ফরিদপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলায় বাবার লাশ বাড়িতে রেখে শান্তা ইসলাম নামে এক শিক্ষার্থী পরীক্ষায় বসলেন। বাড়ির বাইরে মাইকে জানাজা ও দাফনের সময়ের ঘোষণা দেয়া হচ্ছে। এ অবস্থায় বাবার লাশ বাড়িতে রেখে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয় শান্তা ইসলাম।

পরীক্ষা শেষে শান্তা বাড়ি ফিরলেই বাবার জানাজা ও দাফন কাজ শেষ করা হবে। দুই ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে শান্তা ছোট। দীর্ঘদিন ধরে কিডনিজনিত রোগে ভুগতে থাকা তার বাবা মো. মাহাম্মুদ শেখ মারা যান।

মঙ্গলবার (২২ আগস্ট) এক আত্মীয়ের সঙ্গে কেন্দ্রে যায় শান্তা। এর আগে সকাল ৮ টার দিকে ওই শিক্ষার্থীর বাবা মারা যান। শান্তা ইসলাম আলফাডাঙ্গা আদর্শ ডিগ্রি কলেজের মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থী। উপজেলার টগরবন্দ ইউনিয়নের পানাইল এলাকার বাসিন্দা মাহাম্মুদ শেখের মেয়ে। তার পরীক্ষা কেন্দ্র আলফাডাঙ্গা সরকারি ডিগ্রি কলেজে।

এ বিষয়ে আলফাডাঙ্গা আদর্শ ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এম এম মজিবুর রহমান মুজিব বলেন, কেন্দ্র সচিবের মাধ্যমে মেয়েটির খোঁজখবর নেয়া হয়েছে। বাবাকে হারানো সন্তানের জন্য খুবই কষ্টের বিষয়। তারপরও শান্তা ইসলাম তার ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে পরীক্ষায় বসেছে।

এ বিষয়ে পরীক্ষায় দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রজত বিশ্বাস বলেন, শান্তা ইসলাম সহপাঠীদের সঙ্গে বসে পরীক্ষা দিয়েছে। বাবা হারানোর শোক যে কোন সন্তানের জন্য কষ্টের। সে সবার সঙ্গে স্বাভাবিকভাবেই পরীক্ষা দিয়েছে। তবে তাকে শোকাহত ও কান্না করতে দেখেছি। সবার সঙ্গে পরীক্ষা দিলে তার মন ও তার জন্য ভালো হবে ভেবে বিশেষ কোনও ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

Please Share This Post in Your Social Media

এ জাতীয় আরও খবর
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব madaripursomoy.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Theme Customized By Shakil IT Park

এই ওয়েবসাইটের সকল স্বত্ব madaripursomoy.com কর্তৃক সংরক্ষিত